শিরোনাম :
বেহিসেবি বোলিং-ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশের হার পায়রা সেতু নির্মাণ প্রকল্পে ৫২ কোটি টাকা সাশ্রয় দেশে ডেঙ্গুতে একজনের প্রাণহানি, আরও শনাক্ত ১৭৯ সরকার সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টি করে বিএনপিকে দায়ী করছে: ফখরুল বাংলাদেশে করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৭৫ ‘বাংলাদেশে চীনের উপস্থিতি ভারতের স্বার্থের সঙ্গে সাংঘর্ষিক’ শতভাগ মানুষ টিকা না পাওয়া পর্যন্ত মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি আওয়ামী লীগ ৭৫- এ বাকশাল করে গণতন্ত্র হত্যা করেছে : মোশাররফ সাম্প্রদায়িক হামলা নিয়ে প্রধান বিচারপতির উদ্বেগ প্রকাশ ফের পূর্ণ রাজ্যের মর্যাদা পাবে জম্মু-কাশ্মির: অমিত শাহ দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করলে একটি গোষ্ঠীর কদর বাড়ে : প্রধানমন্ত্রী আজ আন্তর্জাতিক ডলফিন দিবস রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৭৪ চাকরি করুন ঢাকা চেম্বার অব কমার্সে কর্মী খুঁজছে ডিবিএল গ্রুপ

৭ হাজার ৫৭০ কোটি টাকা তুলল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

  • সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

অনলাইন ডেস্ক: বাজার থেকে এক দিনে রেকর্ড ৭ হাজার ৫৭০ কোটি টাকা তুললো কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম নিলামে এ টাকা তোলা হয়েছে। এর মধ্যে ৭ দিন মেয়াদি বিলে ১ দশমিক শূন্য ১ শতাংশ সুদে ৩ হাজার ৬২০ কোটি এবং ১৪ দিন মেয়াদি বিলে ১ দশমিক ৩০ শতাংশ সুদে তোলা হয়েছে তিন হাজার ৯৫০ কোটি টাকা। সাম্প্রতিক সময়ে এক দিনে এত বেশি টাকা তোলার নজির নেই।

দীর্ঘ আড়াই মাস বন্ধ থাকার পর গত আগস্টে বাংলাদেশ ব্যাংক বিলের নিলাম ডেকে ১৯ হাজার ৬৪৬ কোটি টাকা তোলা হয়। ৭, ১৪ ও ৩০ দিন মেয়াদি বিলে ৫ দিনের নিলামে অংশ নিয়ে এ পরিমাণ টাকা রাখে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর মধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ ৬ হাজার ৭০ কোটি টাকা তোলা হয় গত ১১ আগস্ট।

ওই দিন ৩০ দিন মেয়াদি বিলে শূন্য দশমিক ৫৪ শতাংশ সুদে এ পরিমাণ অর্থ তোলা হয়। গত আগস্টের আগে সর্বশেষ ২০১৯ সালের ৩ জানুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংক বিলের নিলাম হয়।

বাজারে অতিরিক্ত তারল্য নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে মুদ্রাবাজারে স্থিতিশীলতা বাজায় রাখতে চলতি সেপ্টেম্বর মাসেও নিলামের সিদ্ধান্ত জানিয়ে গত ১ তারিখ সব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে চিঠি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল ছাড়াও আগামী ৯ ও ২১ সেপ্টেম্বর ৭ ও ১৪ দিন মেয়াদি বিলের নিলাম হওয়ার কথা রয়েছে। আর ৭, ১৯ ও ২৩ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে ৩০ দিন মেয়াদি বিলের নিলাম।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, আশানুরূপ ঋণ চাহিদা না থাকায় গত জুন শেষে সিআরআর সংরক্ষণের পর ব্যাংকগুলোতে অলস পড়ে আছে ৬২ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। একই সময়ে উদ্বৃত্ত অর্থের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৩১ হাজার কোটি টাকা।

এ অর্থ যেন অনুৎপাদনশীল খাতে গিয়ে মূল্যস্ফীতির ওপর চাপ তৈরি করতে না পারে সে জন্য টাকা তোলা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ উদ্যোগের ফলে বাজারে তারল্য কমে আমানতের সুদ বাড়তির দিকে রয়েছে।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved