শিরোনাম :
১০ ডিসেম্বর সমাবেশ কি বুদ্ধিজীবী হত্যাকারীদের সাথে বিএনপির সংহতি প্রকাশ : তথ্যমন্ত্রীর আমরা সাংবিধানিক অধিকারে বিশ্বাস করি : চুন্নু গাইবান্ধায় উপ-নির্বাচন : রিটার্নিং কর্মকর্তা-এডিসিসহ ১৩৩ জনের শাস্তির সিদ্ধান্ত ইসির বিএনপির সমাবেশ হলেই নাটক শুরু হয় : কাদের সাবেক ছাত্রনেতা খায়রুল খুনের মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন শিক্ষাব্যব্যস্থাকে সনদমুখী থেকে দক্ষতামুখী করতে হবে: পলক নয়াপল্টনে অনুমতি না দিলে সময়ই বলে দেবে : মির্জা আব্বাস করোনার টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডিসেম্বরকে বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস হিসেবে ঘোষণার দাবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ৯৪ বারের মতো পেছাল সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন ব্যাংক কাদের ঋণ দিচ্ছে, জানাতে হবে ওয়েবসাইটে : হাইকোর্ট আয়াতের বিচ্ছিন্ন মাথা পাওয়া গেল স্লুইস গেটে আজ বিশ্ব এইডস দিবস গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত : প্রতিমন্ত্রী ইউক্রেনে উন্নত অস্ত্র ব্যবহার করা উচিত রাশিয়ার: শোইগু

হাসপাতালে খালেদা জিয়া

  • শনিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২১

ঢাকা : শারীরিক অবস্থার পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

শনিবার (১৩ নভেম্বর) বিকেল ৫টা ১১ মিনিটে গুলশানের বাসভবন থেকে তিনি হাসপাতালের উদ্দেশ্য রওনা হন। তিনি ৫ টা ৪০ মিনিট হাসপাতালে পৌঁছান। এসময় বেগম খালেদা জিয়ার সাথে ছিলেন বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন।

চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, এভারকেয়ার হাসপাতালের ব্লক-বি এর ৭২০৫ ও ৭২০৪ নং কেবিন বুকিং নিয়েছেন খালেদা জিয়া।

আগে ১২ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিন সপ্তাহেরও বেশি সময় হাসপাতালে চিকিৎসা নেন তিনি। এরপর গত ৭ নভম্বের হাসপাতাল ছেড়ে গুলশানে নিজ বাসা ফিরোজায় উঠেন।

খালেদা জিয়া বহু বছর ধরে আথ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, দাঁত ও চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন। এপ্রিলে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। নানা শারীরিক জটিলতায় ২৭ এপ্রিল তাকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৫৩ দিন চিকিৎসা শেষে ১৯ জুন বাসায় ফেরেন খালেদা জিয়া।

উল্লেখ্য, দুর্নীতি মামলার সাজায় খালেদা জিয়া ২০০৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যান। করোনা মহামারির প্রেক্ষাপটে গত বছরের ২৫ মার্চ সরকার শর্ত সাপেক্ষে তাকে সাময়িক মুক্তি দেয়। এ পর্যন্ত তিন দফায় খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়।

বিএনপির নেতারা খালেদা জিয়ার শর্তসাপেক্ষে এ মুক্তিকে ‘গৃহবন্দি’ বলছেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে বারবার আবেদন করা হলেও সরকার তা নাকচ করে দেয়। তাকে দেশে থেকেই চিকিৎসা নিতে হবে বলে শর্তও দেয়া হয়।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved