শিরোনাম :
বিরোধী দলের প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ বিএনপি: কাদের স্বাস্থ্য বিভাগে প্রশিক্ষিত জনবলের অভাব আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী কুমিল্লার ঘটনায় অপরাধীর বিচার হবে : প্রধানমন্ত্রী দেশে পৌঁছেছে আরও ৫৫ লাখ টিকা রাজধানীতে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে গ্রেফতার ৫২ ৮ম শ্রেণি পাসে চাকরি করুন ডিফেন্স ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্টে টরন্টোতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি শিক্ষার্থী নিহত ২০২২ সালেও থাকবে করোনা মহামারি: ডব্লিউএইচও পীরগঞ্জে যেভাবে ছড়িয়েছে হামলার উসকানি বন্যা-ভূমিধসে ভারত ও নেপালে নিহত ১৩৩ আফগান নারী খেলোয়াড়ের শিরশ্ছেদ করলো তালেবান বিশ্বে সংক্রমণ বাড়ছে, একদিনে সাড়ে ৭ হাজার মৃত্যু মালয়েশিয়ায় ১৭২ বাংলাদেশি সহ ২১৩ অভিবাসী আটক গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বদরুন্নেসা কলেজের শিক্ষিকা আটক বিশ্বে প্রথম মানবদেহে বসলো শূকরের কিডনি

স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়ার সিদ্ধান্ত

  • সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ঢাকা : আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায় পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত আসায় ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের করোনা ভ্যাকসিনের আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) অনুমোদন পেলে এ কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানান তিনি।

জাহিদ মালেক বলেন, আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন নেওয়ার চেষ্টা করছি। অনুমোদন পেলে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে। এ ছাড়া চলতি মাসে আরও আড়াই কোটি টিকা আসছে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এখন আমরা ১৮ বছর থেকে তদূর্ধ্ব বয়সী নাগরিকদের টিকা দিচ্ছি। আমরা ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছি। এ সংখ্যাটি বিশাল। আমরা যেহেতু সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিচ্ছি, কাজেই ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদেরও টিকা দেব। তবে, এর আগে আমরা ডব্লিউএইচও’র অনুমোদন নেব।’

‘যদিও ২২টি দেশ তাদের ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী নাগরিকদের টিকা দিচ্ছে। তারা এ ক্ষেত্রে তাদের নিজস্ব আইন ও প্রটোকল অনুসরণ করছে’, যোগ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এ ছাড়া জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমাদের টিকার ঘাটতি হবে না। চলতি মাসেই আরও আড়াই কোটি টিকা আসছে। এটি চূড়ান্ত হয়েছে।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘করোনার সংক্রমণ এখন নিম্নমুখী। ফলে, করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর কিছু অন্যান্য রোগীদের জন্য ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ঢাকায় ১২ থেকে ১৪ হাজারের মতো করোনা সিট খালি। এগুলোতে অন্যান্য রোগী ভর্তি করা হবে।’

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved