শিরোনাম :
নিখোঁজের আগের ঘটনা জানালো শিমুর বোন ফাতেমা মনে রাখবেন, জনগণের টাকায় আমাদের সংসার চলে : রাষ্ট্রপতি অপ্রচলিত বাজারে পোশাক রপ্তানি বেড়েছে ২৪ শতাংশ নির্বাচন কমিশন আইন প্রণয়ন নিয়ে টিআইবির বিবৃতি সূচকের উত্থান-পতনে লেনদেন শেষ বাংলাদেশে করোনায় আরও ১০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৮৪০৭ এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কথা ভাবছি না : শিক্ষামন্ত্রী বিএনপি অবৈধ অর্থ ব্যয়ে লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ করেছে : তথ্যমন্ত্রী হত্যার দায় স্বীকার করলেন স্বামী একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু দেখল অস্ট্রেলিয়া ওমিক্রন ঠেকাতে সক্ষম নয় টিকার ৪র্থ ডোজও : গবেষণা দলীয় লোক‌ দিয়ে নির্বাচন ক‌মিশন গঠন আইন কর‌ছে সরকার: নজরুল ১ এপ্রিল মেডিকেলের ভর্তি পরীক্ষা সুদানে সেনাবিরোধী বিক্ষোভে গুলিতে নিহত ৭ ৮ মার্চ খালেদা জিয়ার অভিযোগ গঠনের শুনানি

লাখ লাখ আফগান মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে, জাতিসংঘের হুঁশিয়ারি

  • শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : তালেবান আফগানিস্তানের শাসন ক্ষমতা দখলের পর থেকে আফগানদের দুরাবস্থা যেন বেড়েই চলেছে। দেশটিতে চলমান মানবিক ও আর্থিক সংকটও বাড়ছে প্রতিদিন। এই পরিস্থিতিতে আফগানিস্তানের লাখ লাখ নাগরিক ‘মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে’ রয়েছে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তেনিও গুতেরেস।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা। প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আফগানিস্তানের বিদ্যমান বিপর্যয়কর পরিস্থিতি ঠেকানোর জন্য জাতিসংঘের যে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মানবিক সহায়তা আবেদন রয়েছে, সেটিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অবদান রাখার আহ্বান জানিয়েছেন গুতেরেস।

এছাড়া আফগানিস্তানকে সম্ভাব্য সামাজিক ও অর্থনৈতিক বিপর্যয় থেকে রক্ষা করতে দেশটির বাজেয়াপ্ত সম্পদ ছেড়ে দেওয়া এবং আফগান ব্যাংকিং ব্যবস্থাকে অচলাবস্থা থেকে কাটিয়ে জোরেশোরে চালু করতে হবে বলেও জানান জাতিসংঘ মহাসচিব।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের আন্তেনিও গুতেরেস জানান, হিমায়িত তাপমাত্রা এবং হিমায়িত সম্পদ, উভয়ই আফগানিস্তানের জনগণের জন্য প্রাণঘাতী বিষয়। আর তাই মানুষের জীবন ও বিপর্যস্ত অর্থনীতিকে বাঁচাতে প্রয়োজনীয় অর্থ ব্যবহার করা থেকে বাধা দেয় এমন নিয়ম ও শর্তগুলো এই ধরনের জরুরি পরিস্থিতিতে স্থগিত করতে হবে।

এমনিতেই দশকের পর দশক ধরে যুদ্ধের কারণে অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত আফগানিস্তান। গত আগস্টে তালেবান কাবুলের ক্ষমতা দখলের পর থেকে সেই পরিস্থিতি দিনে দিনে কেবল খারাপই হয়েছে। আফগানিস্তানে বর্তমানে যা আর্থিক পরিস্থিতি, তাতে এই প্রবল শীতে লাখ লাখ মানুষ অভুক্ত থাকতে হতে পারে।

২০ বছর পর গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান দখলে নেয় তালেবান। এরপর সেপ্টেম্বর মাসের শুরুতে তালেবান অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভার ঘোষণা দেয়। অবশ্য সরকার গঠন করলেও বিশ্বের কোনো দেশই এখনও পর্যন্ত তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি। এর জেরে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ ও এর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দাতা সংস্থাও আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তাসহ অর্থ সাহায্য পাঠানো বন্ধ করে দেয়।

ফলে দেশটিতে অর্থনৈতিক সংকট প্রতিদিনই খারাপের দিকে যাচ্ছে। এছাড়া তালেবানের ক্ষমতা গ্রহণের আগে থেকেই বিদেশি সহায়তার ওপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল ছিল আফগানিস্তানের অর্থনীতি। আগস্ট থেকে সেই সহায়তা আসা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আর্থিক ও মানবিক সংকট কেবলই বেড়েছে।

জাতিসংঘ বলছে, বর্তমানে ৮৭ লাখ আফগান অনাহারের দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন। গুতেরেস বলছেন, সংকটের শুরুতে আফগান অর্থনীতিতে তারল্য বাড়ানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল এবং এর মাধ্যমে দারিদ্র্য, ক্ষুধা ও অসহায়ত্বের মুখে পড়া লাখ লাখ আফগানের সম্ভাব্য বিপর্যয়ও এড়ানো যেত।

জাতিসংঘ মহাসচিব জোর দিয়ে বলেন, বিপর্যয় ও সংকট এড়ানোটাই এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বর্তমানে লাখ লাখ আফগান মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন।

এর আগে আফগানিস্তানের অর্থনৈতিক ও ব্যাংকিং ব্যবস্থা পতনের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে বলে গত নভেম্বরের শেষের দিকেও সরব হয়েছিল জাতিসংঘ। আর তাই মানবিক ও আর্থিক নিরাপত্তার স্বার্থে আফগান ব্যাংকগুলোকে রক্ষায় জরুরি পদক্ষেপ নিতেও সেসময় আহ্বান জানিয়েছিল সংস্থাটি।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved