শিরোনাম :
আবারও বাড়ল বিদ্যুতের দাম, প্রজ্ঞাপন জারি বাংলাদেশে কেন অফশোর ব্যাংকিং চালু হচ্ছে বেইলি রোডে রেস্টুরেন্টে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ১০ ইউনিট গাজায় ত্রাণ দেওয়ার সময় ইসরায়েলি বাহিনীর নির্বিচার গুলি, নিহত ১০৪ টেকনাফ সীমান্তে ফের মর্টার শেল ও গুলির শব্দ বাড়ছে করোনা, ফেব্রুয়ারিতে মৃত্যু ৮ জনের ১১টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা হাজার লোকের বিপরীতে হাসপাতালে রয়েছে একটি বেড: স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিএনপি-জামায়াত ইসরায়েলের দোসর: পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাখাইনের মিনবিয়া শহরের দখল নিলো আরাকান আর্মি অভাব অনটনে বৃদ্ধের আত্মহত্যা স্বামীকে জিম্মি করে গর্ভবতী স্ত্রীকে ধর্ষণ, মারা গেছে গর্ভের সন্তান সব সঞ্চয় ফিলিস্তিনি শিশুদের দান করে গেছেন সেই মার্কিন বিমান সেনা সূচক পতনে শেষ হয়েছে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস মালয়েশিয়ায় ১৪ হাজারেরও বেশি অবৈধ অভিবাসী গ্রেফতার

মাশরাফির বাড়ি ঘেরাওয়ের হুমকি ই-অরেঞ্জের গ্রাহকদের

  • শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১

ঢাকা : পাওনা টাকা ফেরতের দাবিতে ই-অরেঞ্জকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় বেধে দিয়েছে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মটির গ্রাহকরা। এরমধ্যে গ্রাহকদের টাকা ফেরত ও পণ্য সরবরাহ করতে যদি কোনো ধরনের সঠিক সিদ্ধান্ত না আসে তাহলে সকল গ্রাহক রাজপথে নেমে আমরণ অনশন করবে এবং প্রতিষ্ঠানটির সাবেক ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার বাড়ি ঘেরাও করবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গ্রাহকরা।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কে শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে শুরু হওয়া মানববন্ধন ও বিক্ষোভে গ্রাহকরা তাদের দাবির কথা তুলে ধরেন। রাজধানীর গুলশানে ই-অরেঞ্জ কার্যালয়ের সামনে থেকে সকাল ১০টার পর বিক্ষোভটি শুরু করেছিলেন গ্রাহকরা। সেখান থেকে তারা দুপুরে যান প্রেস ক্লাবে।

মানববন্ধনে তারা বলেন, আমাদের পিঠ ঠেকে গেছে দেয়ালে। ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে গেছে। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেখব তারা কি সিদ্ধান্ত দেয়। যদি এই সময়ের মধ্যে কোনো সিদ্ধান্ত না দেয় তাহলে আমরা অনশন করব। গ্রাহকরা বলেন, মাশরাফি ভাই ই-অরেঞ্জের ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর ছিলেন। তাকে প্রতিষ্ঠানটির সাথে যুক্ত হতে দেখে আমরা টাকা ইনভেস্ট করে আজ পথে বসেছি। দ্রুত আমরা পণ্য বা টাকা ফেরত চাই, নইলে মাশরাফি ভাইয়ের বাড়ি ঘেরাও করবো।

তারা আরও বলেন, ক্রিকেটার মাশরাফি ভাই যেদিন থেকে এই প্রতিষ্ঠানের ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে এসেছেন তখন থেকে এই প্রতিষ্ঠানের অর্ডার ১০ গুণ বেড়ে গেছে। এখন তিনি বলছেন, তার সঙ্গে চুক্তি জুলাই মাসে শেষ হয়েছে। আপনারা লক্ষ্য করলে দেখবেন, উনি চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পরে মে মাস থেকে এখন পর্যন্ত বাইকগুলোর ডেলিভারি হয়নি। তাহলে ওই দায়টুকু তো তার।

মানববন্ধন ও বিক্ষোভে গ্রাহকেরা ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ইক্যাব) বিরুদ্ধে স্লোগান দেন। তাদের একজন বলেন, ‘ই-ক্যাব কিছু হলেই বলে নট আউট। তারা নট আউট কেন বলবে? তাদের তো আগে উচিত ছিল এইসব কোম্পানির বিরুদ্ধে খোঁজ নেয়া। আমরা তো জানি না যে কে কাগজ নিয়েছে আর কে নেয়নি। অপর এক গ্রাহক বলেন, ‘বাংলাদেশ টিমের অধিনায়ক যখন বিজ্ঞাপন দিয়ে বলে, আস্থা রাখুন ই-অরেঞ্জে, তখন আমাদের কীভাবে বিশ্বাস হবে এটি ভুয়া?’

ফাহিম নামের এক গ্রাহক বলেন, ‘আমাদের প্রত্যেকে লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছি। এগুলো কীভাবে ফেরত পাব তা নিশ্চিতভাবে বলা হচ্ছে না। আমি ই-অরেঞ্জের একজন ভুক্তভোগী গ্রাহক। ই-অরেঞ্জ ডট শপ লাখো গ্রাহকের অর্থ নিয়ে পণ্য না দিয়ে গ্রাহকদের সঙ্গে প্রতারণা করে যাচ্ছে।’

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved