শিরোনাম :
প্যাকেটজাত খাবারে মাত্রাতিরিক্ত লবণ, ঝুঁকিতে ৯৭ ভাগ মানুষ রোহিঙ্গাদের যেতেই হবে: প্রধানমন্ত্রী গণতান্ত্রিক সমাজ নির্মাণের ভিত মজবুত করবে তথ্য অধিকার: তথ্যমন্ত্রী নানা কর্মসূচিতে শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উদযাপিত বিদ্রোহীদের হাতে মিয়ানমার জান্তা বাহিনীর ১৫ সেনা নিহত জাস্ট ওয়েট, চমক থাকবে :ইসি চীনে রেস্তোরাঁয় অগ্নিকাণ্ডে ১৪ জনের মৃত্যু লাঠি নিয়ে রাস্তায় নামলে সমুচিত জবাব : কাদের ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’র ১৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ২৪ ঘন্টায় রেকর্ড ৫২৪ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে আগামী ৩ দিনে বাড়তে পারে বৃষ্টির প্রবণতা মির্জা ফখরুল সন্ত্রাসীদের নেতা হতে চান কিনা, প্রশ্ন নাছিমের ঘাতকরা শেখ হাসিনাকে বহুবার হত্যার সুযোগ খুঁজেছে: নৌ প্রতিমন্ত্রী বাবুল-ইলিয়াসের বিরুদ্ধে পিবিআইয়ের মামলা : প্রতিবেদন ৬ নভেম্বর ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা

বাণিজ্য সহযোগিতা জোরদারে বাংলাদেশ-কম্বোডিয়া এফটিএ চুক্তিতে সম্মত

  • শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২

ঢাকা : বাণিজ্য সহযোগিতার ক্ষেত্র আরও সম্প্রসারণে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ ও কম্বোডিয়া। এর ফলে দেশ দুটি মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) স্বাক্ষর করতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়। এ বৈঠকে তারা বাণিজ্য সহযোগিতার ক্ষেত্র সম্প্রসারণে সম্মত হয়েছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কম্বোডিয়ার সঙ্গে এফটিএ-র জন্য তার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন এবং কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন এই প্রস্তাবে সম্মত হয়েছেন।

বৈঠকে বাংলাদেশ ও কম্বোডিয়ার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয়েও আলোচনা হয়।

কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী কম্বোডিয়া থেকে বাংলাদেশে চাল রপ্তানির বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন। বাংলাদেশকে কম্বোডিয়ায় কৃষি ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে বিনিয়োগের আমন্ত্রণও জানান তিনি।

হুন সেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেন যে, আসিয়ানের চেয়ারম্যান হিসেবে কম্বোডিয়া রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সব ধরনের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) মহাপরিচালক আন্তোনিও ভিতোরিনোর সাথেও দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেছেন।

এ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী আইওএম মহাপরিচালককে বলেছেন, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) কোভিড মহামারি এবং ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে যেসব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে, সেগুলো মোকাবিলায় কার্যকর সুপারিশ করে অভিবাসী প্রেরণকারী দেশগুলোকে সহায়তা করতে পারে বাংলাদেশ।

লিবিয়া ও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বিভিন্ন দেশে পাচারের শিকার বাংলাদেশিদের প্রত্যাবাসনে সহযোগিতার জন্য আইওএমকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী।

আইওএম মহাপরিচালক অভিবাসীদের কল্যাণে বাংলাদেশের গৃহীত পদক্ষেপের প্রশংসা করেন এবং আশা প্রকাশ করেন যে বাংলাদেশ ও আইওএমের মধ্যে সহযোগিতার ক্ষেত্র ভবিষ্যতে আরও প্রসারিত হবে।

পরে প্রধানমন্ত্রী কসোভোর প্রেসিডেন্ট ভজোসা ওসমানী-সাদ্রিউয়ের সঙ্গে আরেকটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন। বৈঠকে বাংলাদেশ ও কসোভোর মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

অন্যদিকে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতারাও একই স্থানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

এ সময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম উপস্থিত ছিলেন।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved