শিরোনাম :
রৌমারীতে মাসহ ৫ মাসের সন্তানকে গলা কেটে হত্যা সিভিল কেস ‘বেগুন ক্ষেতের মতো’, এটা পরিবর্তন করতে হবে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হলেন আব্দুস সালাম কালবৈশাখী ঝড় কেড়ে নিল ৫ প্রাণ, ক্ষয়ক্ষতি ব্যাপক আরও বাড়ল সোনার দাম ফিনল্যান্ডে বিদ্যুতের পর এবার গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করলো রাশিয়া সংকটে বিপর্যস্ত শ্রীলঙ্কায় জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার ইপিবি প্রতিনিধিদলের ওয়ালটন হেডকোয়ার্টার পরিদর্শন, পণ্য রপ্তানিতে সহায়তার আশ্বাস খাদ্য সুরক্ষায় আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বাড়াতে বাংলাদেশ প্রস্তুত: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সরকার বিএনপিকে আর টোপে ফেলতে পারবে না : মোশাররফ গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি দেশে অরাজকতা হতে পারে: এফবিসিসিআই জুনে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে: কাদের কর্তৃত্ববাদী সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে আশংকা আছে : জি এম কাদের ৬০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি সরকারি কর্মচারীদের ঢাকা-চট্টগ্রামের সঙ্গে খাগড়াছড়ির যোগাযোগ বন্ধ

প্রাইভেট পড়াতে গিয়ে ছাত্রীর সাথে প্রেম, অত:পর…

  • শনিবার, ১৪ মে, ২০২২

পাবনা : পাবনার বেড়ায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্ত্রীসহ দুই সন্তান রেখে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে নিয়ে পালানোর অভিযোগ উঠেছে। ওই শিক্ষক ছাত্রীকে তার বাড়ি গিয়ে প্রাইভেট পড়াতেন বলে জানা গেছে।

শনিবার (১৪ মে) সকালে নতুন ভারেঙ্গা একাডেমী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহফুজার রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্ত শিক্ষক হাসমত হোসেন উপজেলার নতুনভারেঙ্গা ইউনিয়নের বাটিয়াখড়া গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে। তিনি ঐতিহ্যবাহী ভারেঙ্গা একাডেমির সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত।

স্কুল সূত্রে জানা গেছে, ভারেঙ্গা একাডেমির সহকারী শিক্ষক হাসমত হোসেন ওই ছাত্রীকে তার বাড়িতে গিয়ে প্রাইভেট পড়াতেন। প্রাইভেট পড়ানোর সুযোগে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সোমবার ওই ছাত্রী স্কুলে যায়। তবে স্কুল ছুটির পর সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। তার অভিভাবকরা দুদিন ধরে খোঁজাখুঁজি করেনও সন্ধান পাননি।

পরে ওই ছাত্রীর সহপাঠীদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিভাবকরা গৃহশিক্ষক হাসমত হোসেনের কাছে ফোন করেন। তিনি ছাত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করেন এবং তাকে বিয়ে করেছেন বলে জানান। এ ঘটনায় বুধবার ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বেড়া মডেল থানায় অভিযোগ করেন।

ছাত্রীর বাবা বলেন, ‘হাসমতকে আমি অনেক বিশ্বাস করতাম। তার কাছে আমার মেয়ে প্রাইভেট পড়ত। কিন্তু সে এত বড় প্রতারক, তা জানতাম না।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সহকারী শিক্ষক হাসমত হোসেন সাত বছর আগে বেড়ার বাটিয়াখড়া গ্রামের মৃত হিরা মিঞার মেয়ে খাদিজা খাতুনকে বিয়ে করেন। তাদের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

ভারেঙ্গা একাডেমির প্রধান শিক্ষক মাহফুজার রহমান বলেন, ‘প্রায় এক যুগ ধরে হাসমত স্কুলে শিক্ষকতা করছেন। আগে কখনো এমন আচরণ তার মধ্যে লক্ষ্য করিনি। তিনি এমন ন্যাক্কারজনক কাজ করেছেন আমরাও সামাজিকভাবে লজ্জার মধ্যে পড়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনাটি জানার পর অভিযুক্ত শিক্ষকের সঙ্গে পুলিশ ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের কথা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে স্কুল কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নেবে।’

বেড়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার বলেন, ‘আমাদের কাছেও অভিযোগ এসেছে। ওই ছাত্রীকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।’

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved