শিরোনাম :
রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৫৫ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গুলিতে নিহত ২ এবার ইটনার হাওরে দেখা মিললো জলস্তম্ভের তুরাগে ভাঙারি দোকানে বিস্ফোরণ: দগ্ধ ৮ জনের মধ্যে ৭ জনের মৃত্যু তুরাগে ভাঙারি দোকানে বিস্ফোরণ: দগ্ধ ৮ জনের মধ্যে ৭ জনের মৃত্যু জামিন বাতিলের বিরুদ্ধে সম্রাটের আবেদন খারিজ শ্রীলঙ্কায় বিদ্যুতের দাম বাড়লো ২৬৪ শতাংশ বরিশালে ৬ নদীর পানি বিপৎসীমার ওপরে, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত ক্রিমিয়ায় রুশ বিমানঘাঁটিতে ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ দৈনিক সংক্রমণ প্রায় ৭ লাখ, মৃত্যু ১ হাজার ৮শ’র ওপর তুরাগে দগ্ধ ৮ জনের ৭ জনই মারা গেলেন বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ, উপকূলে ঝড়-জলোচ্ছ্বাসের শঙ্কা বিজেপির সঙ্গ ছেড়ে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের পদত্যাগ পশ্চিমবঙ্গে ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৯ বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার ট্রলারডুবি, ১৩ জেলে নিখোঁজ

নৌকায় বেলি-ড্যান্স, তালাক দিলেন স্বামী

  • বুধবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মিসরে আয়া ইউসুফ নামের এক স্কুলশিক্ষিকাকে বেলি-ড্যান্স করায় চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এরপর তার স্বামী তালাক দিয়ে ঘর ছাড়া করেছেন। জানা যায়, নীল নদে নৌকার উপরে একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে বেলি-নাচ করার সময় একজন সহকর্মী অনুমতি ছাড়াই তার নাচের রেকর্ড করেন। ভিডিওতে পুরুষ সহকর্মীদের পাশাপাশিই নাচতে দেখা যায় তাকে।

আর এর মাসুল হিসেবেই চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয় আয়া ইউসুফকে। তার স্বামীও তাকে ‘তালাক’ দেন। খবর বিবিসির। ভিডিওতে দেখা যায়, আয়াকে ইসলামিক স্কার্ফ এবং একটি দীর্ঘ-হাতা পোষাক পরে নাচতে দেখা গেছে। গত সপ্তাহে আরব নেট মাধ্যমে এই ভিডিও ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়ার পরে, এটি মিশরীয় রক্ষণশীলদের মধ্যে ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে। নেট মাধ্যমে সমালোচকরা দাবি করেছেন যে, তার এই আচরণ অত্যন্ত লজ্জাজনক।

মিশরে শিক্ষা নিম্নস্তরে পৌঁছেছে বলেও অন্য একজন নেট মাধ্যমে মন্তব্য করেছেন। এর পরেই আয়াকে দাকাহলিয়া গভর্নরেটের প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বরখাস্ত করা হয়। সেখানে তিনি বিগত কয়েক বছর ধরে শিক্ষকতার কাজ করেছিলেন।

এই ঘটনার পরে সারাজীবন নাচ না করার প্রতিজ্ঞা করেন তিনি। এমনকি তিনি আত্মহত্যার কথা ভেবেছিলেন বলেও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানান। আয়ার অভিযোগ, তিনি শিক্ষার্থীদের সামনে নাচেননি। তিনি একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে আনন্দ প্রকাশ করতে নেচেছিলেন। একই সঙ্গে এই ভিডিওটি চিত্রায়িত করা ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করার পরিকল্পনা করেছেন বলেও তিনি জানিয়েছেন। তবে এই পরিস্থিতিতে আয়ার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন মিশরে নারী অধিকার কর্মীরা।

তারা জোর দিয়ে বলেছেন যে, আয়া কিছু ভুল করেননি এবং তিনি সমাজের গোঁড়ামির শিকার। তার সমর্থনে এবং ব্যক্তিগত স্বাধীনতার রক্ষায়, অন্য একটি স্কুলের উপ-প্রধান তার মেয়ের বিয়েতে নাচের ছবি নেট মাধ্যমে পোস্ট করেছেন।

ইজিপ্সিয়ান সেন্টার ফর উইমেনস রাইটসের প্রধান, ড. নিহাদ আবু কুমসান, আয়াকে তার অফিসে চাকরির প্রস্তাব দিয়েছেন এবং বেআইনিভাবে বরখাস্ত করার বিরুদ্ধে আইনি অভিযোগ দায়ের করতেও সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। স্থানীয় কর্তৃপক্ষও আয়াকে নতুন একটি স্কুলে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ করেছেন।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved