শিরোনাম :
প্যাকেটজাত খাবারে মাত্রাতিরিক্ত লবণ, ঝুঁকিতে ৯৭ ভাগ মানুষ রোহিঙ্গাদের যেতেই হবে: প্রধানমন্ত্রী গণতান্ত্রিক সমাজ নির্মাণের ভিত মজবুত করবে তথ্য অধিকার: তথ্যমন্ত্রী নানা কর্মসূচিতে শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উদযাপিত বিদ্রোহীদের হাতে মিয়ানমার জান্তা বাহিনীর ১৫ সেনা নিহত জাস্ট ওয়েট, চমক থাকবে :ইসি চীনে রেস্তোরাঁয় অগ্নিকাণ্ডে ১৪ জনের মৃত্যু লাঠি নিয়ে রাস্তায় নামলে সমুচিত জবাব : কাদের ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’র ১৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ২৪ ঘন্টায় রেকর্ড ৫২৪ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে আগামী ৩ দিনে বাড়তে পারে বৃষ্টির প্রবণতা মির্জা ফখরুল সন্ত্রাসীদের নেতা হতে চান কিনা, প্রশ্ন নাছিমের ঘাতকরা শেখ হাসিনাকে বহুবার হত্যার সুযোগ খুঁজেছে: নৌ প্রতিমন্ত্রী বাবুল-ইলিয়াসের বিরুদ্ধে পিবিআইয়ের মামলা : প্রতিবেদন ৬ নভেম্বর ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা

কলম্বিয়ার মোস্ট ওয়ান্টেড মাদক সম্রাট উসুগা গ্রেফতার

  • রবিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কলম্বিয়ার মোস্ট ওয়ান্টেড মাদক পাচারকারী ও অপরাধী চক্রের নেতা দাইরো আন্তোনিও উসুগাকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ। দেশটির সেনা, নৌ ও পুলিশ বাহিনী যৌথ অভিযান চালিয়ে স্থানীয় সময় শনিবার ( ২৩ অক্টোবর) দাইরো আন্তোনিও উসুগা ওরফে অতোনিয়েলকে গ্রেফতার করে। খবর বিবিসির।

কলম্বিয়া সরকার অতোনিয়েলকে ধরিয়ে দিতে আট লাখ মার্কিন ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল এবং যুক্তরাষ্ট্র তার মাথার দাম পাঁচ মিলিয়ন ডলার ঘোষণা করেছিল।

কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান দুকো এক টেলিভিশন বার্তায় অতোনিয়েলকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ১৯৯০ সালে পাবলো এসকোবারের পতনের পর এই শতাব্দীতে মাদক পাচারকারীদের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় সাফল্য এটি। অভিযান চলাকালে এক পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন বলেও জানান তিনি।

অতোনিয়েলকে পানামার সীমান্ত সংলগ্ন উত্তর-পশ্চিম কলম্বিয়ার অ্যান্টিওকিয়া প্রদেশে তার গ্রামীণ আস্তানা থেকে গ্রেফতার করা হয়। কলম্বিয়ার সেনাবাহিনী পরে একটি ছবি প্রকাশ করে, যেখানে দেখা যায়, সৈন্যরা হাতকড়া পরা অতোনিয়েলকে পাহারা দিচ্ছেন।

এর আগেও বেশ কয়েকবার ৫০ বছর বয়সী এই মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালানো হলেও তা সফল হয়নি।

১০ বছর আগে নববর্ষ উদযাপন পার্টিতে পুলিশের অভিযানে নিহত হয় অতোনিয়েলের ভাই। এরপর উপসাগরীয় মাদক পাচার সংগঠনের দায়িত্ব পায় অতোনিয়েল। কলম্বিয়ার নিরাপত্তা বাহিনী এই চক্রকে দেশটির সবচেয়ে শক্তিশালী অপরাধী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও এটিকে ভারী অস্ত্রে সজ্জিত এবং সহিংস হিসেবে বর্ণনা করে।

এই চক্রটি আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক গড়ে তোলে এবং মানবপাচার, স্বর্ণ পাচার এবং মাদক পাচারের সঙ্গে জড়িত। ধারণা করা হয়, এই অপরাধী চক্রের সদস্য সংখ্যা এক হাজার আটশর মতো। আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, পেরু ও স্পেনেও ধরা পড়ে এই চক্রের সদস্যরা।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved