শিরোনাম :
শীতকালে ১৬ গুণ বেশি দূষিত ঢাকার বায়ু, শীর্ষে শাহবাগ ফতুল্লায় বীর মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা, টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুট রাজধানীতে পুলিশের অভিযানে মাদকসহ আটক ৫০ ট্যাঙ্কের পর কি যুদ্ধবিমান পাবে ইউক্রেন? পাকিস্তানে মসজিদে বোমা হামলায় নিহত বেড়ে ১০০ বিশ্বজুড়ে করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েছে আবারও বড় মেয়েকে নিয়ে পালানোর চেষ্টা জাপানি মায়ের ভারতে বহুতল ভবনে আগুন, নিহত ১৪ নানা অপরাধে চাকরিচ্যুতিসহ শাস্তি পেলেন ইসির ৬৯ জন ভুল তথ্যে র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল আমেরিকা : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবারও বাংলাদেশের কোচ হাতুরুসিংহে বিএনপির দম ফুরিয়ে গেছে বলে নীরব পদযাত্রা করছে: কাদের সাহস থাকলে দেশে মামলা ফেস করুন, তারেককে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সরকারের হাতে টাকা নেই তাই বিদ্যুতের দাম বাড়াচ্ছে: মোশাররফ ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়াতে মুসলিম উম্মাহর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

আর নির্যাতন করবেন না, পুলিশকে ফখরুল

  • শুক্রবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২১

ঢাকা: পুলিশ ও প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, একটা চরম দুর্নীতিপরায়ন, নির্যাতনকারী এবং রাষ্ট্রবিরোধী একটি দলের সঙ্গে আপনারা এভাবে জনগণের ওপর নির্যাতন ও নিপীড়ণ করবেন না। কারণ আজকে এই সরকার রাষ্ট্র ও জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থা নিয়েছে।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে এসব কথা বলেন তিনি।

‘দ্রব্যমূল্যের সীমাহীন উর্দ্ধগতির প্রতিবাদে’ এ কর্মসূচিতে প্রশাসনকে উদ্দেশ্য তিনি বলেন, পুলিশ ভাই বলুন এবং প্রশাসনের ভাই বলুন, সবাইকে বলতে চাই- আপনারা এদেশের সন্তান, এদেশের মানুষের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণ করবেন না। একটা চরম দুর্নীতিপরায়ন, নির্যাতনকারী এবং রাষ্ট্রবিরোধী একটি দলের সঙ্গে আপনারা এভাবে জনগণের ওপর নির্যাতন ও নিপীড়ণ করবেন না। কারণ আজকে এই সরকার রাষ্ট্র ও জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থা নিয়েছে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দলের একটি কর্মসূচিতে পুলিশের হামলার কথা উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, এতো ভয় পান কেনো? ভয় পান এজন্য, কারণ আপনাদের পায়ের নিচে মাটি নাই। জনগণ যে দিন রাজপথে বের হবে, যেদিন সময় হবে- সেদিন আপনারা পালানোর পথও খুঁজে পাবেন না।

তরুণ ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এখন সংগঠিত ও সুস্থ হন। আর জনগণকে সাথে নিয়ে আমরা যাতে একটি দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে পারি, জাতীয় ঐক্যের মধ্যে দিয়ে, সকল রাজনৈতিক দল মত সবাইকে এক করে এই যে ভয়াবহ দানবীয় সরকারকে আছে তাদেরকে সরিয়ে জনগণের একটা সরকার যাতে প্রতিষ্ঠিত করতে পারি, জনগণের সংসদ যাতে তৈরী করতে পারি- সেই লক্ষ্য আমাদেরকে আন্দোলন করতে হবে।

বিএনপির অবশ্যই নির্বাচন চায় জানিয়ে ফখরুল বলেন, সেই নির্বাচন হতে হবে নির্বাচনকালীয় সময়ে একটা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে। আর নির্বাচন কমিশনকে হতে হবে সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ। তবেই এদেশে নির্বাচন হবে। অন্যতায় নির্বাচন হবে না।

দেশে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন প্রধানমন্ত্রী দেখতে চান- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যে সমালোচনা করে তিনি বলেন, ভূতের মুখে রামনাম। এই যে গত তিন তিনটি নির্বাচন তারা ধ্বংস করলো। এখন এমন একটা অবস্থা দাঁড়িয়েছে, সৈয়দপুরের এমপি বলছেন- আমি ঠিক করে দেবো কে চেয়ারম্যান হবে এবং কে মেম্বার হবে! অন্য কেউ দাঁড়াতে পারবে না। আমরা চিন্তাই করতে পারি না, ১৯৭১ সালে এই গণতন্ত্রের জন্য আমরা লড়াই করেছিলাম? সেই গণতন্ত্রকে একেবারে বঙ্গোপসাগরে ফেলে দিয়ে তারা এখন একটা একদলীয় বাকশাল প্রতিষ্ঠিত করেছে। তাদের নেতা এবং পাতি নেতাদের দৌরােত্ম্যে আর থাকতে পারে না।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আপনারা বাজাররে যান, বাজার করেন? বাজারে কি আগুন দেখতে পান? চাল, ডাল ও তেলের দাম কমছে না কি বাড়ছে? বাড়ছে বন্ধুরা। ডিম, চিনি, কেরোসিন তেল, শশা এবং কাঁচাবাজারসহ একটা জিনিসের দাম আমাদের নিয়ন্ত্রণের মধ্যে নাই। সাধারণ মানুষ এখন আর ভালো খেতে পারেন না। খায় কারা, আওয়ামী লীগের লোকেরা।

তিনি বলেন, আপনারা দেখবেন, জিনিসপত্রের দাম হু- হু করে বাড়ছে। টুকু সাহেব বলেছেন, একটা সিন্ডিকেট আছে। সিন্ডিকেটরা কি করে, তারা তাদের মতো করে দাম বাড়ায়। একই সাথে আওয়ামী লীগের নেতা, পাতি নেতা যারা আছেন তারা আবার টোল ও চাঁদা নেন। পথে পথে ট্রাকের কাছ থেকে তাররা টোল আদায় করে। এই অবস্থায় দেশের মানুষের নাভিশ্বাস উঠে গেছে। তাদের শ্বাস গলায় আটকে গেছে। আর বাড়ে না। বারবার শুধু জিজ্ঞাস করে, আর কতো দিন আমরা কতো নির্যাতন ও অত্যাচার সহ্য করব।

স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুইয়া জুয়েলের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved