শিরোনাম :
বগুড়া-৪ আসনে ৮৩৪ ভোটে হারলেন হিরো আলম আরও বিপুল পরিমাণ সয়াবিন তেল কিনবে সরকার উপ-নির্বাচনে সুষ্ঠু ভোটের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে: কাদের ডিসেম্বরেই সংসদ নির্বাচন যে কৌশলে এরদোগানকে হারাতে চান বিরোধীরা জানুয়ারিতে ডেঙ্গুতে মারা গেছেন ৬ জন অনলাইনে ঘোষণা দিয়ে আনা যাবে ডলার আদানি কেলেঙ্কারি : আতঙ্কে ভারতীয় শেয়ার ছাড়ছেন বিদেশিরা সূচকের সাথে বেড়েছে লেনদেন হজে যেতে এবার জনপ্রতি খরচ হবে ৬ লাখ ৮৩ হাজার টাকা চাঁপাইনবাবগঞ্জে ভোটকেন্দ্রের ভেতর থেকে ককটেল উদ্ধার সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলায় পরবর্তী সাক্ষ্য ৭ ফেব্রুয়ারি ভাষাশহীদদের সম্মানে বাংলায় রায় দিলেন হাইকোর্ট সূচকের সামান্য উত্থানে লেনদেন চলছে শীতকালে ১৬ গুণ বেশি দূষিত ঢাকার বায়ু, শীর্ষে শাহবাগ

আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি দেশের মানুষের আস্থা নেই : মান্না

  • সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১

ঢাকা : বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি দেশের মানুষের আস্থা নেই বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, ‘এই সরকারকে মানুষ পছন্দ করে না। চলতি সরকার সত্য কথা বললেও মানুষের আস্থা হয় না। ভোট ডাকাতি, দুঃশাসন চালানো, এক ব্যক্তির কাছে সমস্ত ক্ষমতা কেন্দ্রীভূত করার জন্য মানুষ তাদের অপছন্দ করে।’

সোমবার (২৯ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত কল্যাণরাষ্ট্র ভাবনা শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মান্না বলেন, মানুষের সুখও একটা বড় জিনিস, আমার কাছে টাকা আছে। কিন্তু রাস্তায় বের হলে হঠাৎ কোন এক গাড়ি আমাকে চাপা দিতে পারে। সেটা সিটি কর্পোরেশনের গাড়ি অথবা সুন্দর কোন গাড়ি। আমার রাস্তায় কোন নিরাপত্তা নেই, চলাবার কোন নিরাপত্তা নেই। কারণ জিনিসপত্রের দাম বেড়ে গেছে। উন্নয়ন সেটাকেই বলা যায়, যেটা মানুষের প্রয়োজন মিটিয়ে সমৃদ্ধির দিকে নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, সরকার ফাঁকিবাজ। তারা ফাঁকি দিয়ে মানুষের ভোট কেড়ে নেয়, মানুষের অধিকার কেড়ে নেয়া হচ্ছে। ফাঁকি দিয়ে জিডিপি নির্ভর উন্নয়নও এরকম ফাঁকি দিয়ে বোঝার চেষ্টা করছে। অর্থনীতি নিয়ন্ত্রণ করতে হলে রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ দরকার। তা নাহলে অর্থনীতি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব না। একটা কল্যাণ রাষ্ট্র নির্মাণ করতে হলে আগে ক্ষমতায় যেতে হবে। ক্ষমতায় গিয়ে কল্যাণের কাজ করতে হবে।

রাজনৈতিক এই ব্যক্তিত্ব বলেন, অনেকেই হয়তো খেয়াল করবেন বিএনপি কল্যাণ রাষ্ট্রের কথা বলে, আওয়ামী লীগ কল্যাণ রাষ্ট্রের কথা বলে, জামায়ত ইসলাম কল্যান রাষ্ট্রের কথা বলে। তারা যদি কল্যাণ রাষ্ট্রের কথা বলে থাকে তাহলে আজ কেন বেগম জিয়াকে চিকিৎসার জন্য সরকারের কাছে ধর্না দিতে হচ্ছে?

তিনি বলেন, আমাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা তেমন হবার কথা ছিলো যাতে আমাদের স্বাস্থ্য, আমাদের চিকিৎসা নিশ্চিত হয়। সেটা আমরা করিনি। কিন্তু এখন আমরা বলছি আমরা সেটা করতে চাই। আমরা বাচালতা করতে চাই না। আমরা বিশ্বাস করি, জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ হচ্ছে রাজনীতির খুবই জরুরি বিষয়। অর্থাৎ যারা রাজনীতি করবেন তারা জ্ঞানের চর্চা করবেন। এবং সেই জ্ঞানের ভিত্তিই সমাজটাকে বদলাবে।

নাগরিক ঐক্যের এই আহ্বায়ক বলেন, যারা ক্ষমতা চালাচ্ছে অথবা আগে যারা চালিয়ে তারা জনগণের কল্যাণকে তাদের প্রধান বিষয় মনে করেনি। যদি করতো তাহলে আমাদের স্বাস্থ্য সেবাটা এত খারাপ কেন? করোনার আগে কি বোঝা গেছে এই অবস্থা। একটা মধ্যবিত্ত পরিবারের সদস্যের যদি একটা মাঝারি ধরনের অসুখ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। হাসপাতাল থেকে বের হলে তাকে আর মধ্যবিত্ত বলতে পারবেনা, সে নিম্নবিত্ত দরিদ্র হয়ে গেছে।

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য দলের সমন্বয়ক শহীদুল্লাহ কায়সার, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ডা. জাহেদুর রহমান প্রমুখ।

সংবাটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খরব
© Copyright © 2017 - 2021 Times of Bangla, All Rights Reserved